Sunday , January 29 2023
Home / News / টিকটিকির সমস্যায় অতিষ্ট? ডিমের খোঁসা বা ময়ূরের পালকেও কাজ হচ্ছে না? একবার এটি ব্যবহার করে দেখুন

টিকটিকির সমস্যায় অতিষ্ট? ডিমের খোঁসা বা ময়ূরের পালকেও কাজ হচ্ছে না? একবার এটি ব্যবহার করে দেখুন

আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতেই কমবেশি নানান ধরনের কীটপতঙ্গের সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। আরশোলা টিকটিকি থেকে শুরু করে মাকড়সা সবকিছু উপদ্রপের কারণে আমাদের কিন্তু বেশ সমস্যা হয়।। আজকাল বাজার চলতি বিভিন্ন জিনিস পাওয়া যায় এই সমস্ত পোকামাকড় তাড়ানোর জন্য যা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কিন্তু অকার্যকর। প্রচুর পরিমাণে দাম নিলেও এই সমস্ত জিনিস খুব একটা কাজে লাগে না তা বলাই যায়।।

তাই আজকে আপনাদের সুবিধার্থে আমরা সম্পূর্ণ ঘরোয়া কয়েকটি উপকরণ ব্যবহার করে একটি মিশ্রণ তৈরি করতে চলেছি যার সাহায্যে কিন্তু খুব সহজেই আপনারা কিন্তু বাড়ি থেকে টিকটিকির উপদ্রব সম্পূর্ণরূপে নিরাময় করে নিতে পারবেন। টিকটিকি নিয়ে কিন্তু আমাদের অত্যন্ত অসুবিধা হয়।

বিশেষ করে রান্নাঘরে যদি টিকটিকির উপদ্রব বেশি হয় সেক্ষেত্রে খাবারের মধ্যে নানান ধরনের বিষাক্ত পদার্থ মিশে যাওয়ার সমস্যা থাকে। টিকটিকির উৎপাত কমানোর জন্য আমরা অনেক সময় নানান ধরনের বিষাক্ত রাসায়নিক কিন্তু স্প্রে করে থাকি। এবারে রান্নাঘরে স্বাভাবিকভাবেই এগুলি স্প্রে করতে গেলে তা খাবারে মিশে যেতে পারে। পাশাপাশি কোনোভাবে যদি খাবারের মধ্যে টিকটিকি পড়ে যায় তাহলে কিন্তু আরো বিপদজনক। সুতরাং আমাদের কিন্তু এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য বিকল্প ব্যবস্থা খুঁজে নিতে হবে।

টিকটিকি তাড়ানোর কয়েকটি সহজ উপায়:

১) প্রথমেই যে উপায়টির কথা আলোচনা করব তার জন্য আপনাকে একটি পাত্রের মধ্যে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে নিতে হবে। তারপর সেই জলের মধ্যে পেঁয়াজের রস, ডেটল এবং কিছুটা পরিমাণে সাইট্রিক এসিড মিশিয়ে ফেলুন। এবারে এই মিশ্রণটিকে একটি স্প্রে বোতলে ভরে যে সমস্ত জায়গায় টিকটিকির উৎপাত সবথেকে বেশি সেখানে স্প্রে করে দিন।

চাইলে আপনারা এই মিশ্রণটি কে রান্নাঘরে যেখানে খাবার থাকে তার আশেপাশে স্প্রে করে দিতে পারেন, এতে কখনোই খাবারের আশেপাশে টিকটিকি আসার কিন্তু ভয় থাকবে না।

২) দ্বিতীয় পদ্ধতিতে আপনাদেরকে সামান্য পরিমাণে কফি এবং আটা মিশিয়ে নিতে হবে। চাইলে কিন্তু আপনারা ময়দা ও ব্যবহার করতে পারেন। এবারে এই মিশ্রণের মধ্যে সামান্য পরিমাণে তামাক মিশিয়ে এটিকে মেখে ফেলুন। ছোট ছোট বল তৈরি করে যে সমস্ত জায়গা দিয়ে টিকটিকি প্রবেশ করে থাকে অর্থাৎ ভেন্টিলেটর কিংবা জানলা, তার মধ্যে রেখে দিন। ভুল করেও এই বল টিকটিকি মুখে দিলে কিন্তু আপনার বাড়িতে আর কোনদিন প্রবেশ করবে না।

৩) সবশেষে যে পদ্ধতিটি সম্পর্কে আলোচনা করব তাতে পেঁয়াজ এবং রসুন বেটে তার থেকে রস বের করে নিতে হবে।তারপরে সেই নির্যাস এর মধ্যে কিছুটা পরিমাণ ডেটল এবং লবণ মিশিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করে নিতে হবে। এবারে এই মিশ্রণটিকে একটি স্প্রে বোতলে ভরে জানলা এবং রান্নাঘরের বিভিন্ন জায়গায় স্প্রে করে দিন। দেখবেন কখনোই এই সমস্ত জায়গায় টিকটিকির উৎপাত হবে না এবং আপনার রান্নাঘরে থাকা খাবার সম্পূর্ণ সুরক্ষিত অবস্থায় থাকবে।

উপরিউক্ত তিনটি পদ্ধতি ছাড়াও আপনারা কালোমরিচ গুঁড়ো করে জলে মিশিয়ে নিতে পারেন। তার পরে সেই জল টিকটিকির ঘোরাফেরার এলাকাগুলিতে স্প্রে করে দিন। মরিচের গন্ধে টিকটিকির অ্যালার্জির সমস্যা হয়। ওরা পালায়।পোকামাকড় তাড়াতে ন্যাপথলিন বল খুব কাজে লাগে। এদের ঝাঁঝালো গন্ধে টিকটিকিরও অস্বস্তি হয়। ফলে যে সব কোণে টিকটিকির উৎপাত বেশি, সেখানে ন্যাপথলিন রাখা থাকলে টিকটিকি সেই এলাকা ছেড়ে পালায়।

 

Check Also

ঘরের মধ্যে খুদে কেশবকে কোলে নিয়ে ভঙ্গিতে নাচলো অভিনেত্রী মধুবনী, ভিডিও ভাইরাল

বাদশা’ র গাওয়া jugnu গান এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে রীতিমতো ভাইরাল (Viral)। ট্রেন্ডিং এই গানে সেলিব্রেটি ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *